কুয়াকাটা আবাসিক হোটেলে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে ধারণা

0
66

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা-কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি॥

একই সাথে রাত্রি যাপন করার পরে, সকালবেলার নাস্তা সেরে, স্বার্থপরের পরিচয় দিয়ে চিরবিদায় করে দিয়ে পালিয়ে গেলেন টুকু। এ যেন দুধ কলা দিয়ে কালসাপ প্রসার গল্প। কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল থেকে সৌরভ জামিল সোহাগ (৫৫) নামে এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার সকাল ৬টার দিকে একটি লাইট ব্লু কালারের প্রাইভেট কারে টুকু নামে একজনকে নিয়ে আবাসিক হোটেল সাউথ বাংলা ১১২ নং কক্ষে ওঠেন তিনি। এর পরদিন সোমবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে টুকু পিঠে একটি ব্যাগ ঝুলিয়ে হোটেলের রুম ত্যাগ করে প্রাইভেট কার নিয়ে বেরিয়ে যান। হোটেলে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ এবং রেজিস্টার খাতার ভিত্তিতে পুলিশ এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। বিকেলে ওই হোটেলের বয় মুসা (২৫) কক্ষ পরিস্কার করতে গিয়ে দরজা খোলায় এবং খাটের ওপর শুয়ে থাকা সৌরভ জামিল সোহাগের নিথর দেহ দেখতে পায়। এরপর পুলিশে খবর দেওয়া হলে মহিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেন। নিহত সৌরভ জামিল সোহাগের বাসা খুলনার দৌলতপুর আঞ্জুমান সড়কে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্যমতে সন্দেহভাজন হত্যাকারী টুকু খুলনার একটি আবাসিক হোটেল মালিকের ছেলে। মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, এটি একটি হত্যাকান্ড হিসেবেই প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। পটুয়াখালী সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাহফুজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের বলেন, বিছানাপত্র এবং লাশের অবস্থা দেখে ধারণা, হত্যাকারী বালিশচাপা দিয়ে হত্যা নিশ্চিত করে শরে পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে অধিকতর তদন্ত এবং ময়না তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাবার পর হত্যার প্রকৃত কারন জানা যাবে। মহিপুর থানার ওসি জানান, সোমবার রাতে লাশ উদ্ধারের পর পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এর আগে সোমবার দুপুরের দিকে আল্লাহর দান আবাসিক হোটেল থেকে আঃ মানিক (৪৫) নামে একজনের লাশ উদ্ধার করে মহিপুর থানা পুলিশ। জাহিদ ইসলাম জাহিদ কুয়াকাটা কলাপাড়া-প্রতিনিধি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here