তাহিরপুরে ৩ রোহিঙ্গাসহ ১ বাংলাদেশি নাগরিক আটক

0
13

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তবর্তী বাগলী শুল্ক স্টেশন এলাকা থেকে ২ নারী রোহিঙ্গা ও ১ পুরুষ রোহিঙ্গাসহ ১ জন বাংলাদেশী নাগরিককে আটক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। স্থানীয়রা জানান, ভুয়া জন্ম ও নাগরিক সনদ তৈরি করে, তিন বছর আগে ফারুক নামে এক বাংলাদেশী নাগরিক সুফায়রা নামে এক রোহিঙ্গা শরণার্থী নারীকে গোপনে বিয়ে করেন। ফারুকের বিয়ের ৬ মাস পরেই তার ছোট ভাই মোবারকের কাছে তার শালি রুবিনা (রোহিঙ্গা)’কে একই কায়দা অবলম্বন করে বিয়ে দেন ।

গত কাল ১৫ই ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় ওই দুই রোহিঙ্গা নারীর ভাইপো মোহাম্মদ শাফায়াত নামে এক রোহিঙ্গা শরণার্থী বাগলী এলাকায় আসলে বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসে। পরে ওই রোহিঙ্গা শরণার্থী মোহাম্মদ শাফায়াতকে জিজ্ঞসাবাদ করে মূল ঘটনা জেনে তাকে আটক করে রাখেন স্থানীয়রা।পরে বিষয়টি তাহিরপুর থানার ওসি আব্দুল লতিফ তরফদারকে অবগত করলে তাৎক্ষণিক ট্যাকেরঘাট ফাঁড়ি থানার ইনচার্জ এএসআই আলাউদ্দিন ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাংলাদেশী ১ ও রোহিঙ্গা শরণার্থী ১ জনকে আটক করেন। এরপর ১৬ ই ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ টার দিকে আরো ২জন রোহিঙ্গা শরণার্থী নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।আটককৃতরা হলেন, তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী বাগলী গ্রামের মৃত আবুল খায়ের’র ছেলে ফারুক, তার স্ত্রী সুফায়রা রোহিঙ্গা, ফারুকের ছোট ভাই মোবারকের স্ত্রী রুবিনা (রোহিঙ্গা)।

এবং ওই দুই রোহিঙ্গা শরণার্থী নারীর ভাইপো মোহাম্মদ শাফায়াত। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়- ফারুকের ২ বছর বয়সি একটি ছেলে সন্তান ও মোবারকের ১ বছর বয়সি একটি সন্তান রয়েছে। স্থানীয়দের অনেকেই বলেছেন, বাংলাদেশের আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রেজিষ্ট্রেশন না করে গোপনে তারা বিয়ে করেছে। ফারুকের বক্তব্য হচ্ছে, রেজিষ্ট্রশন না করলেও স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতেই তারা বিয়ে করেছেন। তারা বিয়ের ক্ষেত্রে আইনী কোনো বাধা বা নিষেধাজ্ঞা মানতে রাজি নন। তাহিরপুর থানার ওসি মোঃ আব্দুল লতিফ তরফদার আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন জানান, আটককৃতদের বিষয়ে যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here