নোয়াখালীতে বীমার টাকার দাবিতে সানফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স অফিস ঘেরাও,অবস্থান কর্মসূচি

0
24
 নুরুন্নবী নবীন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ
নোয়াখালীতে বীমার মেয়াদ উর্ত্তীণ হওয়ার পরেও টাকা না পাওয়ায় হাজার হাজার গ্রাহক পাওনা টাকার দাবীতে সানফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স লিমিটেড সার্ভিস সেল অফিস ঘেরাও করে রাখে এবং মাইজদী অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দুুপুর থেকে রাত সাড়ে ১১ পর্যন্ত তারা মাইজদী অফিসের সামনে অবস্থান করে। এসময় অফিসের তালা ঝুলানো দেখা যায়। অফিসের মধ্যে পুলিশের হস্তক্ষেপে কর্মকর্তারা অবস্থান করেছে। গ্রাহকরা অভিযোগ করেন, কর্মকর্তারা টাকা না দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং টাকা দিতে তালবাহানা করে।
সান ফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি নোয়াখালী জোনাল অফিস কার্যালয় সূত্রে জানা যায় এ কার্যালয়ের অধীনে লক্ষাধিক গ্রাহক রয়েছে। ৩০ জুনের মধ্যে কয়েক হাজার গ্রাহকের বীমার প্রিমিয়াম মেয়াদ শেষে তাদের মূলধন ও লভ্যাংশ বুঝিয়ে দেওয়ার কথা ছিল।

গ্রাহকদের অভিযোগ, ইন্সুরেন্স কর্মীরা মোটা অংকের মুনাফার কথা বলে জেলা শহর ও বিভিন্ন উপজেলা থেকে লক্ষাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে ২শ কোটি টাকারও বেশি মূলধন সংগ্রহ করেছে। ওইসব গ্রাহকদের মধ্যে কয়েক হাজার গ্রাহকের বীমার প্রিমিয়াম মেয়াদ শেষে তাদের মূলধন ও লভ্যাংশ বুঝিয়ে দেওয়ার কথা থাকলেও তারা সেটা না করে বুধবার বিকাল থেকে অফিস গুটিয়ে নিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দুপুর থেকে তারা সান ফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্সের অফিস ঘেরাও করে।

রাতে হাজার হাজার গ্রাহক ইন্সুরেন্স কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আরও কয়েক হাজার গ্রাহক তাদের সঙ্গে যোগ দেন। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দেন।
সান ফ্লাওয়ার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লি. এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর (ডিএমডি) মিজানুর রহমান মিলন বলেন, নোয়াখালী কার্যালয়ের অধীনে লক্ষাধিক গ্রাহক আছে। তাদের মধ্যে কতজন গ্রাহকের প্রিমিয়ামের মেয়াদ শেষ হয়েছে তা তিনি সঠিক বলতে পারেননি।

তিনি বলেন, গ্রাহকদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা আমানতের টাকা দিয়ে কোম্পানি জমি কিনে রেখেছেন। ওই জমি বিক্রি করতে না পারায় গ্রাহকদের টাকা পরিশোধ করা যাচ্ছে না। কর্তৃপক্ষ অফিস গুটিয়ে চলে যাচ্ছে এমন গুজবের ভিত্তিতে গ্রাহকরা অফিসের সামনে এসে ভীড় করেন এসময় উত্তেজিত গ্রাহক ১২ জন কর্মকর্তা কর্মচারীকে কার্যালয়ের ভেতরে আটক রেখে প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন।
সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আনোয়ারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে। তিনি আরো বলেন,বৃহস্পতিবার রাতে কিছু কিছু বীমা গ্রাহকের টাকা দেওয়া হচ্ছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here