বাগেরহাটে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগে গ্রেফতার দুই

0
52

 আব্দুল্লাহ আল নোমান শরণখোলা উপজেলা প্রতিনিধি।

বাগেরহাটে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগে মোঃ সোহরাব হোসেন (৪৮) ও মোঃ মাসুদ রানা (ভুট্টো)(৩৯) নামের দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পূর্বক সোমবার দুপুরে আটককৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এর আগে রবিবার (১১ এপ্রিল) বাগেরহাট শহরের খারদ্বার মসজিদ এলাকা থেকে এদেরকে আটক করে বাগেরহাট জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা। তবে গতকাল রাত পর্যন্ত পুলিশ আটকের বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি। গ্রেফতার মোঃ সোহরাব হোসেন বাগেরহাট শহরের খারদ্বার এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে এবং মোঃ মাসুদ রানা (ভুট্টো) একই এলাকার আনোয়ার হোসেন তালুকদারের ছেলে। পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানাযায়, ১০ এপ্রিল শরণখোলা থেকে দুঃসম্পর্কের ভাইজি সনিয়া খাতুনকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাগেরহাট শহরে আসেন শরণখোলা উপজেলার ছৈলাবুনিয়া এলাকার দর্জি দোকানদার মোঃ ইউসুফ আকন।

মমতাজ হোটেলের সামনে দাড়ানো অবস্থায় মোঃ সোহরাব হোসেন, মোঃ মাসুদ রানা (ভুট্টো)ও মোঃ বাবুল খান নামের তিন ব্যক্তি ডিবি পরিচয়ে তাদেরকে ইজিবাইকে তুলে দশানী নিয়ে যায়। সেখানে তাদেরকে আটকে রেখে আসামীরা বিকাশের মাধ্যমে ২১ হাজার টাকা গ্রহন করেন। পরে আরও টাকা দাবি করে মোঃ ইউসুফ আকনের কাছে। ইউসুফ আকন তার ভাইয়ের কাছ থেকে নিজ বিকাশ এ্যাকাউন্টে আরও ১০ হাজার টাকা আনেন। কিন্তু ইউসুফ আকনের মুঠোফোন থেকে টাকা ক্যাশ করা সম্ভব নয় বলে জানান বিকাশ ব্যবসায়ীরা। এসময় আসামীরা ইউসুফ আকনকে চরথাপ্পর মারে। ইউসুফের সাথে থাকা মেয়েটিকে ছেড়ে দেয়। সিম ফেলে দিয়ে ইউসুফের মুঠোফোন নিয়ে ইউসুফকে ছেড়ে দেয়।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর শাফিন মাহমুদ বলেন, ডিবি পরিচয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তিনজনের নাম উল্লেখ করে ইউসুফ আকন নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা দুই জনকে আটক করেছি। নিয়মিত মামলা হয়েছে। আটকদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এজাহার নামীয় ৩নং আসামী মোঃ বাবুল খানকে গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here