শশুড়ের হাতে জামাই খুন

0
68

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় মেয়ের জামাই আনছার আলীর (৪৯) মৃত্যু হয়েছে,গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় শ্বশুরের কিল-ঘুষিতে । এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী।
নিহত আনছার আলী রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ষোলাগাড়ী গ্রামের আজগর আলীর ছেলে।
শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের বেঙ্গুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুর চান মিয়া পলাতক আছেন।

নিহত আনছার আলী রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ষোলাগাড়ী গ্রামের আজগর আলীর ছেলে। শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের বেঙ্গুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুর চান মিয়া পলাতক আছেন।

স্থানীয়রা জানান, বেঙ্গুলিয়া গ্রামের চান মিয়ার মেয়ে হামিদা বেগমের সঙ্গে আনছার আলীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আনছার আলী ঘরজামাই হিসেবে শ্বশুর বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় টাকা নিয়ে শ্বশুর-জামাইয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে শ্বশুর চান মিয়া আনছার আলীর বুকে ও পেটে এলোপাতারি কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। পরে পরিবারের সদস্যরা আনছার আলীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে মারা যান তিনি।

পলাশবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মতিউর রহমান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম বাদী হয়ে তার বাবা চান মিয়াকে একমাত্র আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম জানান, আমার স্বামী ও সন্তান ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন। তারা বাড়ি ফিরলে আমার বাবা ঘর দেওয়ার জন্য আমার স্বামীর কাছে টাকা দাবি করেন। ওই টাকা না পেয়ে আমার বাবার কিল-ঘুষিতে স্বামীর মৃত্যু হয়েছে।
শ্বশুরের কিল-ঘুষিতে মেয়ের জামাই আনছার আলীর (৪৯) মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী।

 

 

স্থানীয়রা জানান, বেঙ্গুলিয়া গ্রামের চান মিয়ার মেয়ে হামিদা বেগমের সঙ্গে আনছার আলীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আনছার আলী ঘরজামাই হিসেবে শ্বশুর বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় টাকা নিয়ে শ্বশুর-জামাইয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে শ্বশুর চান মিয়া আনছার আলীর বুকে ও পেটে এলোপাতারি কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। পরে পরিবারের সদস্যরা আনছার আলীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে মারা যান তিনি।

পলাশবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মতিউর রহমান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম বাদী হয়ে তার বাবা চান মিয়াকে একমাত্র আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম জানান, আমার স্বামী ও সন্তান ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন। তারা বাড়ি ফিরলে আমার বাবা ঘর দেওয়ার জন্য আমার স্বামীর কাছে টাকা দাবি করেন। ওই টাকা না পেয়ে আমার বাবার কিল-ঘুষিতে স্বামীর মৃত্যু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here