সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে জমজমাট শিলং-তীর নামে জুয়ার আসর

0
32

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে বসছে শিলং তীর নামে ডিজিটাল জুয়া খেলার জমজমাট আসর। গত কয়েক মাস থেকে উপজেলার ১নং শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের শ্রীপুর বাজারে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীর ছত্রছায়ায় এসব জুয়ার আসর মহামারির রুপ ধারণ করেছে। ফলে হাজার হাজার লোকজন টাকা-কড়ি হারিয়ে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই ও রাহাজানিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ে উদ্ভাবিত নাম্বার টোকেনের এই খেলায় ১০ টাকায় ৭০০ টাকা পাবার আশায় বাজারে আসা যুবক, ব্যবসায়ী, শ্রমিক ও স্কুল কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীর লোকজন ডিজিটাল এ জুয়ায় আসক্ত হচ্ছেন।

এলাকার স্থানীয় প্রভাবশালীরা এজেন্ট পরিচালনা করে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এসব এজেন্ট বসায় জুয়ার আসর। এর মধ্যেই আরেকটি চক্র অধিক মুনাফার লোভে নিজেরাই ভারতীয় শিলংয়ের আদলে তাহিরপুরের শ্রীপুর বাজারে গড়ে তুলেছে নতুন আরেকটি শিলং। এই ডিজিটাল জুয়া খেলে পেশাদার জুয়াড়িরাও হচ্ছেন প্রতারিত ও নিঃস্ব।

শিলং তীরের এই জুয়া খেলায় ১ থেকে ৯৯ পর্যন্ত সংখ্যা থাকে সেখানে থেকে এক বা একাধিক নম্বর বেছে নিতে পারে জুয়াড়ি। এ ক্ষেত্রে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ইচ্ছামতো টাকা বাজি ধরা যায়। বেছে নেওয়া সংখ্যা মিলে গেলে বাজি ধরা টাকার ৬০ থেকে ৮০ গুণ বেশি টাকা মেলে।

সপ্তাহে ছয় দিন এই জুয়ার আসরটি চলে। ভারতের শিলংয়ের জুয়ারিরা বাংলাদেশে এজেন্ট নিয়োগ করার মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে আসছিলো। তারা সেলসম্যান নিয়োগ করে দেশের সাধারণ মানুষকে জুয়ার ফাঁদে ফেলে। তবে, বেশিরভাগ জুয়াড়ি বিজয়ী হতে না পেরে টাকা হারিয়ে সর্বশান্ত হয়ে পরে। জুয়ার টাকা সংগ্রহ করতে আশপাশের এলাকায় চুরি-ডাকাতির প্রবণতা আশংকাজনক হারে বেড়ে গেছে। নাম্বার টোকেনের এই খেলায় ১০ টাকায় ৭০০ টাকা পাবার লোভ সংবরণ করতে না পেরে সাধারণ লোকজন এর প্রতি আসক্ত হচ্ছে বলে জানা গেছে।

ফলে এ নিয়ে সচেতন মহলে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ। সমাজের অবক্ষয়রোধে ডিজিটাল এ জুয়া খেলা বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আব্দুল লতিফ তরফদার জানান, এলাকার লোকজন থানা পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করলে দ্রুত আইনত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here