ট্রাম্প প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে সরে যাওয়ার পক্ষে

0
7

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে সরে যাওয়ার পক্ষে আবারও সাফাই গাইলেন ।আবারও একই সঙ্গে, চুক্তিটিকে ‘পক্ষপাতদুষ্ট’ বলে অভিযোগ করেন তিনি।
রোববার (২২ নভেম্বর) ভার্চুয়াল জি টোয়েন্টি সম্মেলনের দ্বিতীয় ও শেষ দিনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

অন্যদিকে, জলবায়ুর পরিবর্তন ঠেকাতে ব্যক্তিগতভাবে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ ছাড়াও ‘জি-টোয়েন্টি’ জোটকে সক্রিয় ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

করোনা মহামারির কারণে গত ২১ নভেম্বর ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে শুরু হয় বিশ্বের উন্নত ২০ রাষ্ট্রের জোট ‘জি টোয়েন্টি’ শীর্ষ সম্মেলন।
রোববার সম্মেলনের দ্বিতীয় ও শেষ দিনে বক্তব্য রাখেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংসহ জোটের অন্যান্য শীর্ষ নেতারা।

প্রথম দিনের সম্মেলনে বিশ্ব নেতাদের বক্তব্যে স্বভাবতই করোনা ইস্যু প্রাধান্য পেলেও দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অন্যান্য বিষয় ছাপিয়ে মুখ্য হয়ে ওঠে জলবায়ু পরিবর্তন।
ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে রাখা বক্তব্যে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে আবারও সাফাই গান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, চুক্তিটি প্রথম থেকেই ছিল একচোখা।

 

ট্রাম্প আরও বলেন, মার্কিন শ্রমিকদের রক্ষা করতেই আমি পক্ষপাতদুষ্ট ওই চুক্তি থেকে সরে গেছি। এমন একটা চুক্তি কোনোভাবেই পরিবেশকে রক্ষা করতে পারবে না। এটা স্রেফ মার্কিন অর্থনীতিকে ধ্বংসের উদ্দেশ্যেই করা হয়েছিল।

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, জলবায়ুর পরিবর্তন রুখতে সবার আগে প্রয়োজন ব্যক্তিগতভাবে সচেতন হওয়া।
তিনি বলেন, সমগ্র মানবজাতির উন্নতি নির্ভর করে ব্যক্তিগত উৎকর্ষ সাধনের ওপর। শ্রমিকের শ্রমকে কেবল উৎপাদনের হাতিয়ার হিসেবে না দেখে তার মানবিক মর্যাদাকে গুরুত্ব দিতে হবে।
জলবায়ু পরিবর্তন রুখতে হলে তাই নীরবে নয়, প্রয়োজন সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা।

চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনরোধে জি-টোয়েন্টিকেই নেতৃত্ব দিতে হবে। শুধু তাই নয়, জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে জাতিসংঘ কনভেনশনের নীতিমালা মেনে চলতেও বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা, এ ছাড়া সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ্পে কন্তেসহ আরও বেশ কয়েকজন বিশ্ব নেতা। আর এর মধ্য দিয়ে শেষ হয় দু’দিনব্যাপী জি-টোয়েন্টি শীর্ষ সম্মেলন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here