কলাপাড়া মৎস্য কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে জেলেদের বিক্ষোভ মিছিল আলিপুরে

0
7

 জাহিদুল ইসলাম জাহিদ-কুয়াকাটা, কলাপাড়া,প্রতিনিধি /:

মহামারী করোনাভাইরাসের মধ্যে হয়রানির শিকার হচ্ছে, মহিপুর ,আলিপুর, কুয়াকাটার শত শত জেলেরা টাকা দাবি করেছে মৎস্য কর্মকর্তা।

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ৬৫ দিনের অবরোধ চলাকালীন সময়ে মাছ ধরার সুবিধা দেয়ার কথা বলে অর্থ দাবি করা ও সমুদ্রগামী ট্রলার মালিক ও মাঝিদের মৎস্য শিকার ও প্রক্রিয়াজাত বিষয়ে প্রশিক্ষণার্থীদের তালিকায় অনিয়ম করায় কলাপাড়া উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহার বিরুদ্ধে জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে। (বুধবার) দুপুর সাড়ে ১ টার দিকে শতাধিক ট্রলার মালিক এবং মাঝিরা আলীপুর মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে মৎস্য কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে এই বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। জানা যায়, কলাপাড়া উপজেলার আলীপুরে বিএফডিসি কনফারেন্স কক্ষে আজ বুধবার দুপুরে সমুদ্রগামী ৫০জনের অধিক ট্রলার মালিক ও মাঝিদের মৎস্য শিকার ও প্রক্রিয়াজাত বিষয়ে দুই দিনের প্রশিক্ষণের আয়োজন করে মৎস্য বিভাগ। স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ীদের কাছে থেকে এ তালিকা নেয়া হয়।

তবে প্রশিক্ষণে বিভিন্ন এলাকার জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা অংশ নিতে উপস্থিত হলে মৎস্য কর্মকর্তার সঙ্গে জেলেদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম স্থগিত করে মৎস্য কর্মকর্তা স্থান ত্যাগ করেন। এতে বিক্ষুব্ধ জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ করেন। এসময় বক্তব্য দেন ট্রলার মালিক সাখাওয়াত হোসেন, ইউসুফ মাঝি প্রমুখ। তবে মৎস্য কর্মকর্তা এ ঘুষ চাওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, প্রশিক্ষণ তালিকায় কোন অনিয়ম করা হয়নি এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং জেলে ও ট্রলার মালিকদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্ধের কারনে বাধ্য হয়ে দুইদিনের প্রশিক্ষণ স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছেন।

সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহা জানান, তাকে ফাঁসাতে তার বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার মিথ্যা অভিযোগ করছে, জেলে ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে দ্বন্ধের কারনে প্রশিক্ষণে একাধিক প্রশিক্ষণার্থী উপস্থিত হওয়ায় তিনি বাধ্য হয়ে প্রশিক্ষণ স্থগিত করেছেন। তিনি আরো বলেন, যেহেতু সাগর ও নদী সবগুলো পয়েন্টে সরকারি বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল রয়েছে তাই অর্থ নিয়ে মাছ ধরতে সুযোগ দেয়ার অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here