তাহিরপুর কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ায় ভোগান্তি, ফসল উত্তোলনেও রয়েছে শঙ্কা

0
9

 সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের মাটিয়ান হাওরের গুইংগা জুড়ির কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ায় চরম ভোগান্তি রয়েছে হাওর পাড়ের প্রায় ১০টি গ্রামের কৃষক, রয়েছে সুষ্ঠু ভাবে ফসল উত্তোলনের শঙ্কাও।

স্থানীয়দের ফসল উত্তোলনের যাতায়াতের জনগুরুত্বপূর্ণ এই কালভার্টটি ভেঙে প্রায় দুই বৎসর পার হলেও,বদেখার কেউ নেই। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে একাধিকবার বাঁশ ও মাটি দিয়ে স্বাভাবিক চলাচলের উপযোগী করা হলেও, ধান পরিবহনকারী টলি কিংবা অন্যান্য যানবাহন চলাচল করতে পারছেনা। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় এই কালভার্ট দিয়ে উপজেলার মাটিয়ান হাওর পাড়ের শিবরামপুর, শ্রীপুর, তরং,নয়াবন্দ,বেতাগড়া সহ প্রায় ১০টি গ্রামের কয়েক হাজার কৃষক, ফসল রোপণ ও উত্তোলন কাজের জন্য চলাফেরা করে।

হালচাল করার ট্রাক্টর চারা ও ধান পরিবহনের ট্রলি ও অন্যান্য যানবাহন পরিবহন করে থাকে। কিন্তু ভেঙ্গে যাওয়ায় পুনরায় বাঁশ ও মাটি দিয়ে মেরামত করায় এই কালভার্ট দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কৃষরা মাথায় পরিবহন ধান পারাপার করলেও, ধান পরিবহন কারী ট্রলি কিংবা অন্যান্য যানবাহন চলাচল করতে পারছেনা। ভাঙ্গা কালভার্টের কারণে তাদের একমাত্র বোরো ফসল উত্তোলনে করতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এতে করে স্থানীয়দের একমাত্র বোরো ফসল উত্তোলনের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। স্থানীয় কৃষকদের প্রানের দাবি অতিদ্রুত জনগুরুত্বপূর্ণ এই ভেঙ্গপ যাওয়া কালভার্টটি পুনরায় নির্মাণ হউক। স্থানীয় হাওর পুটিমারা অস্থায়ী গ্রামের কৃষক মরম আলী জানান, আমরা প্রতি বছরেই ফসল উৎপাদনের জন্য, চারাগাঁও হতে বাবদাদার রেখে যাওয়া পুটিমারা গ্রামে অস্থায়ী ভাবে ছয়মাস বসবাস করে বোরো ধান চাষাবাদ করে ফসল উৎপাদন করে থাকি।

কিন্তু গত দুই বছর ধরে এই কালভার্টটি ভেঙে যাওয়ার কারণে আমাদের ফসল উত্তোলনে ভোগান্তির যেন অন্তনেই। অতিদ্রুত এই ভেঙে যাওয়ায় কালভার্টি নির্মাণ করার দাবি জানাই। শিবরামপুর গ্রামের কৃষক আওয়ামিলীগ নেতা মতিউর রহমান জানান, এই কালভার্টটি ভেঙ্গে যাওয়া আমাদের প্রায় ১০টি গ্রামের কৃষকদের ধান কেটে বাড়িতে নিয়ে আসার ভোগান্তির যেন শেষ নেই, দ্রুত কালভার্টটি পুনরায় নির্মাণ করার দাবি জানাই। স্থানীয় ইউপি সদস্য আলী হোসেন এর কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উনি বলেন, এই ভাঙ্গা কালভার্টটি দিয়ে কৃষকদের কর্তন কৃত ফসল নিয়ে যাতায়াতের জন্য এ পর্যন্ত তিন-তিনবার বাঁশ ও মাটি দিয়ে কাজ করা হয়েছে, কিন্তু ট্রলি বুঝাই করে ধান নিয়ে বাঁশের মেরামতকৃত কালভার্ট দিয়ে যাতায়াত করলে পুনরায় ভেঙ্গে যায়। তবে এই কালভার্টটি পুনরায় মেরামত করার জন্য বাজেট হয়েছে এবং টিকাদান নিয়োগ হয়েছে অতিদ্রুত এর কাজ শুরু হবে। এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ’র কাছে জানতে চাইলে উনি বলেন, অতিদ্রুত কৃষকদের কর্তনকৃত ফসল নিয়ে যাতায়াতের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য কে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে, এবং কালভার্টটি পুনরায় মেরামত করার জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here