নাটোরের সিংড়ায় ১ কিঃমিঃ রাস্তা পাকাকরনের প্রানের দাবি কদমকুড়ি গ্রামবাসীর

0
17

মোঃ বেল্লাল হোসেন বাবু, নাটোর জেলা প্রতিনিধি :

নাটোরের সিংড়া উপজেলার চলনবিল অধ্যুষিত একটি অবহেলিত গ্রামের নাম কদমকুড়ি। উপজেলার ডাহিয়া ইউনিয়নের, ডাহিয়া ও আয়েশ গ্রামের মাঝে এই গ্রামটির অবস্থান।

৪০ থেকে ৪৫টি পরিবার এই গ্রামে বসবাস করে। জনবসতি কম বলে কেউ নজর দেন না এই গ্রামের প্রতি। চলনবিলের প্রবেশ দ্বার নামে খ্যাত সিংড়া-বারুহাস পাকা রাস্তা থেকে ১ কিমি কাঁচা রাস্তাই কদমকুড়ি গ্রামে যাওয়ার একমাত্র পথ। কদমকুড়ি গ্রামবাসীর এই কাঁচা রাস্তা পাকা করনের দাবি র্দীঘ দিনের। প্রত্যন্ত এই বিলাঞ্চলের সিংড়া-বারুহাস পাকা সড়কের প্রায় প্রতিটি গ্রামে যাওয়ার সংযোগ রাস্তা গুলো পাকাকরন হলেও অবহেলিত এই গ্রামের রাস্তা আজও পাকাকরন হয়নি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সিংড়া-বারুহাস পাকা সড়ক থেকে দু পাশের সবুজ ধানের বুক চিরে একে বেঁকে মেঠো পথে কদমকুড়ি গ্রামে প্রাবেশ করেছে এই কাঁচা রাস্তাটি। কদম কুড়ি গ্রামের জমশেদ আলী মন্ডল,রজব আলী রতন,ফরিদ ও তহিদুল জানায়, ২০০৫ সালে গ্রামের মানুষ সবাই মিলে স্বেচ্ছাশ্রমে এই রাস্তা করা হয়।

সেই থেকেই রাস্তা পাকা করনের দাবি করে আসছিলেন গ্রামবাসী। কিন্তু বাস্তবে কোন জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। গ্রামবাসীরা আরও জানায়, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ভোটের আগে রাস্তা পাকা করনের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোটের পর সবাই ভুলে যান এই কদমকুড়ি গ্রামের রাস্তাটির কথা। অনেকেই আছেন যারা কম জনবসতি অবহেলিত এই কদমকুড়ি গ্রামের কথা শুনেও না শুনার ভান করেন। রাস্তা পাকাকরন না হওয়ায় বর্ষার সময়ে চলাচল একেবারেই অনুপযোগী হয়ে পড়ে। ধান বিক্রয় করতে হয় কম দামে। কৃষিপণ্য বহন করাও কঠিন হয়ে পড়ে। তাই স্থানীয়রা আইসিটিপ্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি মহোদয় সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে এই রাস্তা পাকাকরনের দাবি জানান কদমকুড়ি গ্রামবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here