মাগুরার শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে ৫০ বছর পর লাঞ্ছিত করার অভিযোগ।

0
10
 নিজস্ব প্রতিবেদন..
মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের তখলপুর গ্রামে গত শনিবার বিকালে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে করার ঘটনা ঘটেছে।
সাচিলাপুর হাটে সবজি কেনাকে কেন্দ্র করে প্রথমে হাটের মধ্যেই মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলী মন্ডলের সাথে একইগ্রামের খলিল শেখের হাতা হাতির ঘটনা ঘটে। অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, উক্ত খলিল শেখ একজন নারি শিশুনিযাতন মামলার আসামী। গত এক মাস আগে প্রশাসনের লোক তখলপুর গ্রামে এসে ইয়াছিনের দোকানের সামনে এসে মুক্তিযোদ্ধা মোবারককে দেখে খলিল শেখের বাড়ি কোথায় জানতে চায় মোবারক আলী খলিলের বাড়ি দেখিয়ে দেয়। এতেই খলিল শেখ ক্ষিপ্ত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলীর ছেলে সানোয়ার মন্ডলের।
তিনি আরো জানান ঐদিন হাট থেকে খলিল শেখ আগেই বাড়িতে চলে আসে বাড়িতে এসে তার ছেলে ও ভাগ্নে রবিউলকে ডেকে নিয়ে দারোগার ব্রীজ এলাকায় লাঠিসোটা নিয়ে ওতপেতে থাকে মোবারক আলী ভ্যানযোগে সাচিলাপুর বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিল হঠাৎ দারোগার ব্রীজ এলাকায় পৌছালে খলিল শেখ গণরা মোবারক আলীর উপর হামলাচালায় ও কাছে থাকা নগত ৪৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাই। হামলার একপযায় মোবারক আলী মাটিতে লুটিয়ে পড়ে চিতকার দিলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেস্কে ভতি করে।
মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলও বাংলাদেশ থেকে দেশ বিরোধী অপশক্তি এখনও শেষ হয়নি আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হয়েও আমাকে বিনা অপরাধে লান্ছিত হতে হচ্ছে। এব্যাপারে অভিযুক্ত খলিল শেখ বলেন হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে তবে তাকে মারধোর করিনী। এ বিষয়ে শ্রীপুর থানায় দুইজনের বিরুদ্ধে এজাহার দাখিল করেছেন মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলীর ছেলে সানোয়ার মন্ডল। শ্রীপুর থানা অফিসার ইনচাজ সুকদেব রায়ের সাথে কথা হলে তিনি জানান, মামলা হয়েছে এটা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here