সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বাঁধের গুড়া থেকে মাটি তুলে বাঁধ নির্মাণ

0
18

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজের সময়সীমা আর মাত্র ৭দিন বাকি। অথচ এখন অনেক বাঁধের কাজ অর্ধেকও সম্পন্ন করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট পিআইসিরা।

এছাড়াও বিভিন্ন ফসল রক্ষা বাঁধে চলছে অনিয়ম -অব্যবস্থাপনা। সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার গুরমা বর্ধিতাংশের উপপ্রকল্পের কলমার হাওর ও কানামইয়া হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে ৪২নং ও ২৯নং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির ব্যাপক অনিয়ম। বাঁধের গুড়া থেকে মাটি তুলে চলছে বাঁধ নির্মাণ কাজ।কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী বাঁধের মাটি বাঁধ হতে কমপক্ষে ১ কিলোমিটার দূর থেকে উত্তোলন করতে হবে। কিন্তু ৪২ নং ও ২৯নং প্রকল্পের সদস্যরা বাঁধ হতে আনুমানিক ১০-১৫ ফুট দূর থেকেই মাটি উত্তোলন শুরু করেছে। এনিয়ে দুশ্চিন্তায় হাওরের কৃষক। স্থানীয় প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায় থেকে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতি রোধে তোড়জোড় দেখালেও বাস্তবে ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে ৪২নং ও ২৯নং পিআইসি । জানা যায় এর পূর্বেও এরকম অনিয়ম হয়েছে এসব প্রকল্পে এভাবে বছরের পর বছর একই স্থানে বাঁধের একেবারে গোড়া থেকে মাটি উত্তোলন করার কারণে বাঁধের পাশে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে।

এছাড়াও বিভিন্ন বাঁধে দুরমুজ এর কাজ হচ্ছে না মোটেই। প্রশাসনের সতর্কতাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে, এভাবেই কাজ করছে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি(পি,আই,সি’রা)। স্থানীয় কৃষকদের অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের বাঁধ দিয়ে এসব দুর্নীতিবাজরা এ কাজে কিভাবে সম্পৃক্ত হয়, এবং তারা সম্পৃক্ত হওয়ার কারনেই প্রতি বছরে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে এসব অনিয়ম ও দুর্নীতি হচ্ছে। এবং এসব অনিয়ম ও দুর্নীতিতে পর্দার অন্তরালে পরোক্ষভাবে জড়িত থাকা রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের ভয়ে এসব নিয়ে কেউ কথা বলতে রাজি হননি। তবে এ ব্যাপারে স্থানীয় সুশীলসমাজের প্রতিনিধিগণ জানান প্রতি বছর হাওরে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ যেন একটা লাভজনক মৌসুমী ব্যবসায় পরিনত হয়েছে। এতে লাভবান হচ্ছে এক শ্রেণির সুবিধাবাদীরা স্থানীয়দের অভিযোগ রাজনৈতিক বলয়ে কারণে স্বার্থান্বেষীরা এ কাজে সম্পৃক্ত হচ্ছে, যার ফলে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতি সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে। উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের লামাগাও গ্রামের কৃষক কিবরিয়া বলেন যে-ভাবে বাঁধের গুড়া থেকে মাটি তুলে বাঁধ নির্মাণ কাজ হচ্ছে এতে বাঁধের মারাত্মক ক্ষতি হবে।

তবে এ বাঁধের গুড়া থেকে মাটি উত্তোলন করে বাঁধ নির্মাণ কাজ হচ্ছে এ বিষয়ে ৪২নং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি সদস্য সচিব আইকুল মিয়ার কাছে জানতে চাইলে উনি বলেন আমরা দূর থেকেই মাটি আনতেছি অথচ উনার সামনেই বাঁধের গুড়া থেকে মাটি নিচ্চে দেখালে উনি শ্রমিকদের নিষেধ করেন। এবং ২৯নং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম এর কাছে জানতে চাইলে উনি বলেন এখানে গত বছর মাটি কাটছে বাঁধের গুড়া থেকে আমি আর পাশে মাটি উত্তোলন করছি। দূরে মাটি নেই তাই। এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন সুনামগঞ্জ তাহিরপুর উপজেলার মনিটরিং কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ বলেন বিষয়টি দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here