মাতৃত্বের নিদর্শন দেখিয়ে চলে গেলেন নুরজাহান

0
13

মোঃ মুঞ্জুরুল হক সুজন , বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি

নাটোরের বড়াইগ্রামে সড়ক পারাপারের সময় নিজ কন্যাকে দুরে ছুড়ে দিয়ে প্রাণে বাঁচালেও দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন গৃহবধু নুরজাহান (৩২)।

নুরজাহান উপজেলার গড়মাটি মুচিপাড়া গ্রামের মিলন উদ্দিনের স্ত্রী। মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে নাটোর-পাবনা মহাসড়কে উপজেলার গড়মাটি মুচিপাড়া এলাকায় পাবনাগামী আলু বোঝাই ট্রাকের (খুলনা মেট্রো ট-১১-১৬৩২) চাকায় পিষ্ট হয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

নিহতের স্বামী মিলন কাঁদতে কাঁদতে আবেগ আপ্লুত কন্ঠে জানান, আমার সামনেই আমার স্ত্রী নুরজাহান ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। সকালে স্ত্রী ও ২ সন্তানকে সাথে নিয়ে মহাসড়কের পার্শ্বে ভেন্ডি তোলার জন্য জমিতে যাচ্ছিলাম। আমি ও পুত্র মোহিন (১৪) মহাসড়ক পার হয়ে গেলেও স্ত্রী নুরজাহান ও কন্যা জান্নাতুল (৪) মহাসড়ক পারের অপেক্ষায় পার্শ্বের কাঁচা মাটিতে দাঁড়িয়েছিলেন । হঠাৎ ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে স্ত্রী ও কন্যা জান্নাতুলের দিকে যাচ্ছিল। মৃত্যু নিশ্চিত ধারণা করে স্ত্রী নুরজাহান তার কন্যা জান্নাতুলের হাত ধরে দুরে ছুড়ে ফেলে দিয়ে কন্যাকে বাঁচাতে পারলেও ঘাতক ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু বরণ করেন নুরজাহান। ট্রাকটি তখন চোখের সামনেই মহাসড়কের উপর আচড়ে উল্টে পড়ে গেল এবং মাতৃত্বের ভালবাসার দৃষ্ট্রান্ত রেখে দুনিয়া থেকে চির বিদায় নিলেন নুরজাহান”।

এসব কথা বলেই প্রলাপ করছিলেন স্বামী মিলন। দুর্ঘটনার পর নাটোর- পাবনা মহাসড়কে প্রায় ২ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার শফিকুল ইসলাম জানান, নুরজাহান নামের এক গৃহবধু ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। লাশের সুরোতহাল তৈরী করে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ট্রাকটি পুলিশি হেফাজতে রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here