শমশেরনগর-কুলাউড়া রোডে সিএনজি, চালক মিলে সড়ক অবরোধ

0
66

  আলমগীর হোসেন কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃঃ

কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের উসমানগড় এলাকায় সিএনজি-অটোরিক্সা চাপায়   এক বৃদ্ধ মহিলা গুরুতর আহত হন।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১২টায় ঘটনার পর স্থানীয় লোকজনের সাথে সড়কে চলাচলকারী সিএনজি-অটোরিক্সা চালকদের কথা কাটাকাটি ও মারধোরের ঘটনায় ২ চালক আহত হওয়ার অভিযোগ উঠে। চালকদের মারধোরের প্রতিবাদে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালকরা দুপুর সোয়া ২ ঘটিকা থেকে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশি হস্তক্ষেপে পৌণে ৪ টায় সড়কে যান চলাচল শুরু হয়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের পতনঊষারের ডাকবেল গ্রামের সরফর উল্ল্যার স্ত্রী অসহায় বৃদ্ধ মোমিনা বেগম (৬০) কে রাস্তার পাশে একটি সিএনজি-অটোরিক্সা চাপা দেয়। গাড়িটি পরে ওই স্থান ত্যাগ করে। গাড়ির চাপায় মহিলার এক পা ভেঙ্গে যায় এবং গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন। ঘটনার পর স্থানীয়রা জড়ো হন এবং অদক্ষ চালকদের গাড়ি চালনায় ক্ষুব্দ হয়ে উঠেন। এ সময় পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। একই সময়ে সড়কে চলাচলকারী কয়েকজন সিএনজি-অটোরিক্সা চালকের সাথে স্থানীয়দের কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনা দেখা দেয়।

এক পযার্য়ে স্থানীয় লোকজনের হামলায় শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির সহ সম্পাদক মো. সিরাজ মিয়া (৩৬) ও চালক মুক্তার মিয়া (৩৩) আহত হন। এঘটনার প্রতিবাদে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির উদ্যোগে শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়ক অবরোধ করা হয়। এতে যাত্রীসাধারণের চরম ভোগান্তি দেখা দেয়। প্রায় সোয়া ঘন্টা পর পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সিএনজি-অটোরিক্সা চালকদের সাথে কথা বলে যান চলাচল স্বাভাবিক করে। এ ব্যাপারে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির সভাপতি মো. মোস্তফা মিয়া বলেন, পুলিশের উপস্থিতিতে উসমানগড় এলাকায় শাহীন সহ কয়েকজন যুবক আমাদের গাড়ি আটকিয়ে চালকদের নামিয়ে টেনে হেচড়ে মারধোর করেছে এবং টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে। আমাদের দু’তিন জন চালক আহত হয়েছেন।

পুলিশ এ বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই বাধ্য হয়ে আমরা প্রতিবাদ জানিয়েছি। পতনউষার ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সাজিদ আলী বলেন, একটি সিএনজি-অটোরিক্সা বৃদ্ধ মহিলাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। মহিলার একটি পা ভেঙ্গে গেছে ও গুরুতর আহত হয়েছেন। মহিলার স্বামীও নেই। তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজনের সাথে সিএনজি-অটোরিক্সা চালক তকার্তর্কিতে জড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত লোকদের সাথে মারামারির ঘটনা ঘটে।  এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরিফুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে দ্রুত সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করে দেয়া হয়েছে। আর অন্যান্য বিষয়গুলো তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here