১১ কোটি টাকা অনুদান পেল মহিলা সমিতিগুলো

0
6

উন্নত দেশ গড়তে হলে দেশের মহিলা সমিতি গুলো এগিয়ে আসতে হবে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে নারী দারিদ্র্য নির্মূল, নারীর কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির সদস্যদের আরো বেশী করে এগিয়ে আসতে হবে। ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প, গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী খাবার ও পোষাককে ডিজিটাল বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তির সুবিধা কাজে লাগিয়ে শহর ও বিদেশের ক্রেতাদের সামনে তুলে ধরতে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। আজ মঙ্গলবার ঢাকায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমির সভাকক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর আয়োজিত নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতিসমূহের মধ্যে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, জাতির পিতা সমবায়কে গ্রামীণ উন্নয়নের জন্য যাদুস্পর্শের সাথে তুলনা করে বলেছিলেন সমবায়ের মাধ্যমে সুপ্তগ্রাম জেগে উঠবে।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন ১৯ হাজার ৭৫৩টি স্বেচ্ছাসেবী সমিতি রয়েছে। এর মধ্যে তিন হাজার পাচশত স্বেচ্ছাসেবী সমিতিকে আমরা আজ প্রায় ১১ কোটি টাকা বিতরণ করছি, যা সমিতির সদস্য ও গ্রামীণ নারীদের কভিড-১৯ এর ক্ষতি কাটিয়ে সাবলম্বী হয়ে উঠতে ও তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। একই সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নারীদের সমবায় সমিতিতে অংশগ্রহণ বৃদ্ধির যে আহবান জানিয়েছেন, সেই লক্ষ্য পুরণে আজকের এই অনুদান জোর ভূমিকা রাখবে। দেশের সকল জেলা প্রশাসক, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক ও স্বেচ্ছাসেবি সমিতির সদস্যবৃন্দ ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম জুমে এই অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক পারভীন আক্তারের সভাপতিত্বে অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান চেমন আরা বেগম ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এসাইনমেন্ট অফিসার আফরোজা বিনতে মনসুর (গাজী লিপি)। প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা আরো বলেন, নারীর প্রতি নির্যাতন-সহিংসতা বন্ধ, যৌতুক ও বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির সদস্যদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে।

আমরা যে সমাজে বাস করি, সেই সমাজের প্রতি আমাদের দায়িত্ব রয়েছে। সেই দায়িত্ববোধের জায়গা থেকে নিজ নিজ এলাকাকে নারী ও শিশুর জন্য নিরাপদ করে তুলতে হবে। সচিব কাজী রওশন আক্তার বলেন, স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির এই অনুদান দেশের সুবিধা বঞ্চিত নারীদের সক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে তাদের আয়বর্ধকমূলক কাজে সম্পৃক্ত করে নারীর ক্ষমতায়ন ও দেশকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে। স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির মাঝে অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে জুম প্লাটফর্মে সাতক্ষীরা, খুলনা, নড়াইল ও মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রাশসক ও উপকারভোগীরা বক্তৃতা করে। অনুদান প্রাপ্তির অনুভূতি জানিয়ে বিভিন্ন মহিলা উন্নয়ন সমিতির সদস্যরা বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় করোনাকালে অনুদানের পরিমাণ অনেক বেশি। যা তাদের সদস্যদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here