0
10

মোঃ মেহেদী হাসান (রাজা) উপজেলা প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরগজ্ঞ উপজেলার রাজিবপুর ইউনিয়নের বিলখেরুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয় থেকে কাবিল বকসী গ্রাম পযর্ন্ত ০২ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তাটির অবস্থা যেন এক ভয়াবহ মরন ফাদে পরিনিত হয়েছে। ঐ সড়ক দিয়ে দৈনিক হাজারো লোকের আনাগোনার একমাত্র সড়ক। ০২ কিলোমিটার রাস্তাটি আশেপাশের ০৬ টি গ্রামের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে (বিলখেরুয়া,রাজারামপুর হালুয়াপাড়,সুবন্ধী,মগটুলা,কাবিল বকসী) তারমধ‍্যে রয়েছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়, একটি স্কুল এন্ড কলেজ,একটি এতিমখানা মাদ্রাসা ও চারটি জামে মসজিদ। উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের চলাচলে চরম দুর্ভোগ। বর্ষাকালে সড়কটি যাতায়াতের অনউপোযোগী হয়ে ওটে। পায়ে হাটে চলাচলের ও অবস্থা থাকে না। প্রতিষ্টানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম থাকে। গ্রামের যুবক ,বৃদ্ধ, কৃষক,দিনমজুর,ব‍্যাবসায়ীরা হাটবাজারে খুবই কষ্ট করে যেতে হয়। আরো এলাকাবাসীরা বলেন তাদের গ্রাম থেকে রোগী নিয়ে হাসপাতালে যেতেও চরম কষ্ট হয় । বিলখেরুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ের রাস্তার প্রবেশমুখে রয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ এক বাঁশের সেতু। স্কুলের শিক্ষার্থী অভিবাবক ও এলাকার সাধারণ লোকজন বাশের সেতুর সামনে এসে ভয়ে কাপে ওঠে কখন জানি ভেংগে পড়ে যায়। গ্রামের কৃষকরা কৃষি সরজ্ঞাম বোঝাই গাড়ি পাড়াপাড় না হওয়ার কারনে বাঁশের ছাটাই ঐ সেতুর কাছে এসে মাথায় /কাথে নিয়ে পাড়ি দেয়। পূবে অনেকবার বাঁশের সেতুটি দূর্ঘটনায় ভেংগে পড়ে যায়। পুনরায় এলাকাবাসি মেরামত করে তাদের যোগাযোগ সচল করার স্বার্থে। এলাকবাসীর দাবি রাস্তাটি যেন কর্তৃপক্ষ সরজমিনে পরিদর্শন করে এবং রাস্তাটি দ্রুত পাকা করার ব‍্যাবস্তা গ্রহন করা হয়। এ বিষয়ে জানতে ৮ নং রাজিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের বতর্মান চেয়ারম্যান এ কে এম মোতাব্বিরুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এটি এলজিডির রাস্তা আমার এখানে করার কিছু নাই। এটি এমপি মহোদয় ইচ্ছা করলে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here