আগামী ইউপি নিবার্চনের উত্তাপ প্রতিপক্ষ প্রাথীকে সামাজিকভাবে হেয় করতে ভিক্ষুক দিয়ে অপপ্রচারের অভিযোগ

0
7

কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার)

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনে প্রার্থী হিসাবে মাঠে ময়দানে নানা কার্যক্রম ও কলাকৌশলে প্রচার প্রচারনা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। 

এতে কৌশল হিসাবে প্রতিপক্ষ প্রার্থীকে সামাজিকভাবে হেয় করাতে এক ভিক্ষুককে টাকা দিয়ে সাজানো মিথ্যে বক্তব্য প্রচার করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুনাব আলীর বিরুদ্ধে চেয়ারম্যান প্রাথর্ী খলিলুর রহমান ১৪ এপ্রিল বুধবার সন্ধ্যার পর শরীফপুরের লালারচক বাজারে স্থানীয় শতাধিক জনতার সম্মুখে এসব অভিযোগ করেন।  খলিলুর রহমান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক কার্যক্রমসহ বিভিন্নভাবে মানুষের সুখে দু:খে অবস্থান করায় সাধারণ মানুষের মধ্যে জনপ্রিয়তা দেখা দিয়েছে।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনেও একজন চেয়ারম্যান প্রাথর্ী হিসাবে নিজে মাঠে ঘাটে মানুষের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছি। ফলে এলাকার লোকজনের কাছে আমি আলোচিত হয়ে উঠায় সামাজিকভাবে হেয় করাতে আমার প্রতিপক্ষ বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান জুনাব আলী এক ভিক্ষুককে টাকা দিয়ে সাজানো মিথ্যে বক্তব্য বানিয়ে গ্রামগঞ্জে আমার বিরুদ্ধে প্রচার করাচ্ছেন। খলিলুর রহমান বলেন, পার্শ্ববতর্ী হাজীপুর ইউনিয়নের ভুইগাঁও গ্রামের নশাদ আলী একজন সহজ, সরল মানুষ। ভিক্ষাভিত্তি করে তিনি জীবিকা নিবার্হ করেন। এই সুযোগে চেয়ারম্যান জুনাব আলী ওই ভিক্ষুককে পাঁচশ’ টাকা দিয়ে ভিক্ষুকের বাবার জমিজমা বিক্রি করে নি:স্ব করে ফেলেছি এমন অপপ্রচার চালান।

এসময়ে ভিক্ষুক নশাদ আলী বলেন, শরীফপুরের বটতলা বাজারে আমার অপরিচিত এক ব্যক্তি পাঁচশ’ টাকার নোট দিয়ে বলে আমাকে আরও চাল দিবে। আমার বাবার জমিজমা বিক্রি করে নি:স্ব করেছেন খলিলুর রহমান, ভিক্ষা করতে গেলে একথা যেন সবাইকে বলি। নশাদ আরও বলেন, আমি না বুঝে ওই ব্যক্তির শেখানো কথা সঠিক মনে করে মানুষজনকে বলেছি। এ ব্যাপারে শরীফপুর ইউপি চেয়ারম্যান জুনাব আলী বলেন, আমি এসব বিষয়ে কিছুই জানি না। কোন ভিক্ষুককে দিয়ে এসব করানোর মতো মানুষ আমি নই। কে বা কারা এসব করেছে আমার জানা নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here